করোনাকে উপহাসকারী তানজানিয়ার প্রেসিডেন্টের মৃত্যু

করোনাকে উপহাসকারী তানজানিয়ার প্রেসিডেন্টের মৃত্যু

করোনাভাইরাসকে উপহাসকারী তানজানিয়ার প্রেসিডেন্ট জন মাগুফুলি মারা গেছেন। রাষ্ট্রায়ত্ত টেলিভেশনে জাতির উদ্দেশে দেওয়া বক্তৃতায় দেশটির ভাইস প্রেসিডেন্ট সামিয়া সুলুহু হাসান  এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি দাবি করেন, হৃদযন্ত্রের জটিলতায় প্রেসিডেন্টের মৃত্যু হয়েছে।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির এক প্রতিবেদনে ভাইস প্রেসিডেন্ট সামিয়া সুলুহু হাসানকে উদ্ধৃত করে বলা হয়েছে, বুধবার দেশটির বৃহত্তম শহর দার এস সালামের একটি হাসপাতালে হার্টের জটিলতায় প্রেসিডেন্টের মৃত্যু হয়েছে। তার বয়স হয়েছিল ৬১ বছর। ‘অতি দুঃখের সঙ্গে জানাচ্ছি আজ আমাদের সাহসী নেতা, রিপাবলিক অব তানজানিয়ার প্রেসিডেন্ট জন পোমবে মাগুফুলিকে হারিয়েছি আমরা,’ ঘোষণায় বলেন ভাইস প্রেসিডেন্ট হাসান।

বিবিসি জানিয়েছে, মাগুফুলিকে দুই সপ্তাহেরও বেশি সময় ধরে প্রকাশ্যে দেখা যায়নি, সে সময় তার শারীরিক অবস্থা নিয়ে গুজব ছড়িয়ে পড়তে শুরু করে। গত সপ্তাহে বিরোধী দলীয় রাজধানীতিকরা দাবি করেছিলেন, তিনি কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হয়েছেন। তবে তা নিশ্চিত করা যায়নি।

করোনাভাইরাস নিয়ে সংশয়ী ও উপহাসকারী আফ্রিকার অন্যতম বিশিষ্ট ব্যক্তি ছিলেন মাগুফুলি। গত জুনে তানজানিয়াকে ‘কোভিড-১৯ মুক্ত’ বলে ঘোষণা করেছিলেন মাগুফুলি। তিনি মাস্কের কার্যকারিতা নিয়ে উপহাস করেছিলেন, পরীক্ষার ব্যাপারে সন্দেহ প্রকাশ করেছিলেন এবং ভাইরাস ঠেকাতে প্রতিবেশী দেশগুলোর নেওয়া পদক্ষেপ নিয়ে তীর্যক মন্তব্য করেছিলেন। গত বছরের মে থেকে তানজানিয়া দেশটির করোনাভাইরাস পরিস্থিতি নিয়ে আর কোনও তথ্য প্রকাশ করেনি এবং সরকার টিকা কিনতে রাজি হয়নি।

২৭ ফেব্রুয়ারি তাকে শেষবারের মতো প্রকাশ্যে দেখা গেলেও প্রেসিডেন্ট ‘শারীরিকভাবে সুস্থ আছেন এবং কঠিন পরিশ্রম করছেন’ বলে গত সপ্তাহে দাবি করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী কাসিম মাজালিওয়া। প্রেসিডেন্টের অসুস্থতার খবরকে ভিত্তিহীন আখ্যা দিয়ে এ ধরনের  গুজব ছড়ানোর জন্য তিনি বিদেশে বসবাসকারী ‘ঘৃণ্য’ তানজানিয়ানদের দায়ী করেছিলেন। তবে বিরোধীদলীয় নেতা টুনডু লিসু বিবিসিকে বলেছিলেন, তার সূত্রগুলো তাকে জানিয়েছে মাগুফুলি কেনিয়ার হাসপাতালে করোনাভাইরাসের চিকিৎসা নিচ্ছেন।

অক্টোবর, ২০১৫-তে মাগুফুলির ৫৬তম জন্মদিনে তাকে তানজানিয়ার প্রেসিডেন্ট হিসেবে ঘোষণা করা হয়। গত বছর বিতর্কিত এক নির্বাচনে দ্বিতীয় মেয়াদের জন্য নির্বাচিত হয়েছিলেন তিনি। তার মৃত্যুতে রাষ্ট্রীয়ভাবে ১৪ দিন ধরে শোক পালন করা হবে এবং এ সময় জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত থাকবে।

তানজানিয়ার সংবিধান অনুযায়ী, নতুন প্রেসিডেন্ট হিসেবে হাসানের শপথ নেওয়ার কথা এবং মাগুফুলির পাঁচ বছর মেয়াদের বাকি সময় তারই দায়িত্ব পালন করার কথা। প্রেসিডেন্ট হিসেবে গত বছর চলতি মেয়াদ শুরু করেছিলেন মাগুফুলি।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *